মদনে পাওনা টাকা চাওয়ায় মারপিট করার অভিযোগ যুবদল নেতার বিরুদ্ধে।

স্টাফ রিপোর্টারঃ

শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারী) বৃদ্ধের ছেলে শাহ আলম মদন থানাসহ বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের বরাবরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার তিয়শ্রী ইউনিয়নের যুবদল নেতা সাকের খানের শ্বশুরালয়ে।

অভিযোগের প্রেক্ষিতে জানা যায়, উপজেলার নায়েকপুর ইউনিয়নের নোয়াগাও গ্রামে গত দেড় বছর পূর্বে আব্দুল মমিন(৮০) ও তার চাচাতো ভাই উকিল বেপারীর পারিবারিক কলহ হয়।

উকিল বেপারী শাহ আলম ও তার পিতা হাসিম উদ্দিনকে আসামী করে মদন থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। মদন উপজেলার যুবদলের যুগ্ম আহব্বায়ক দিনকাল মদন প্রতিনিধি সাংবাদিক সাকের খান তববির করার জন্য ৫ হাজার টাকা নেয় হাসিম উদ্দিনের কাছ থেকে। এতে কোনো রকম কাজ না করায় টাকা ফেরত চাইলে দিই-দিচ্ছি বলে সময় অতিবাহিত করে সাকের খান।

শুক্রবার (১২ ফেব্রুয়ারী) দুপুরে বৃদ্ধ হাসিম উদ্দিন ও তার ছেলে শাহ আলম টাকা চাইতে তার বাড়িতে গেলে পিতা-পুত্রকে মারপিট করলে বৃদ্ধ হাসিম উদ্দিনকে মদন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এর বিচার চেয়ে বৃদ্ধের ছেলে শাহ আলম মদন থানাসহ বিভিন্ন কর্তৃপক্ষের বরাবরে শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারী) একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।

শাহ আলম জানান, সাংবাদিক সাকের খানের বাড়ি ময়মনসিংহ জেলার নান্দাইল উপজেলায়। জাতীয় পরিচয়পত্রে তার ঠিকানা পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ড মনোহরপুর গ্রামে। মদন উপজেলার যুব দলের যুগ্ম আহব্বায়ক থাকায় বর্তমানে উপজেলার তিয়শ্রী গ্রামে শশুরালয়ে দীর্ঘদিন ধরে বসবাস করছেন। থানায় আমাদের বিরুদ্ধে চাচা অভিযোগ করলে তদবির করার জন্য সাকের খান আমার বাবার কাছ থেকে ৫ হাজার টাকা নেয়। কিন্ত্র কোনো রকম কাজ না করায় টাকা ফেরত চাইলে দিবো দিচ্ছি বলে নানা তাল বাহানায় সময় অতিবাহিত করতে থাকে।

অবশেষে এলাকার মাতাব্বরগণের সুপারিশের প্রেক্ষিতে শুক্রবার টাকা আনতে তার বাড়িতে গেলে আমার বৃদ্ধ বাবা ও আমাকে বেধড়ক পেটায়। বর্তমানে আমার বাবা মদন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছে। এ ব্যাপারে কাউকে কিছু বললে আমাদের প্রাণে মারার হুমকি দেয়। বিচার চেয়ে শনিবার মদন থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছি।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে যুবদল নেতা সাংবাদিক সাকের খান মারপিটের ঘটনার সত্যত্যা স্বীকার করে বলেন, তারা আমার কাছে কোনো টাকা পাবে না।

মদন থানার অফিসার ইনচার্জ মাসুদুজ্জামান জানান, শনিবার এ ব্যাপারে একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে যথাযথ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Scroll Up