ময়মনসিংহের চর হরিপুরে চাঁদার দাবীতে এনজিও অফিস ভাংচুর লুটপাট।।

নিজস্ব প্রতিনিধিঃ ময়মনসিংহের চর হরিপুর নামক  এলাকায় এনজিও প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তার কাছে চাঁদা দাবী, মারপিট, এনজিও অফিস ভাংচুর ও টাকা লুটের ঘটনায় গত ১৭ এপ্রিল ১। মোঃ রুবেল (৩৫), পিতা-মোঃ রাজ্জাক মিয়া, ২। মোঃ বাবু মিয়া(৩২), পিতা-হয় সালাম মিয়া, ৩। একরামুল (১৮), পিতা-আব্দুল হাই, ৪। সুজন মিয়া (২০), পিতা-আলী হোসেন, এ ধধু নিয় (২০), পিতা-আবুল কালাম ওরফে কাইল্ল্যা বেপারী, সর্ব সাং-চর লক্ষীপুর, সর্ব থানা-কোতোয়ালী, ময়মনসিংহ কে অভিযুক্ত করে কোতোয়ালী মডেল থানায় মামলা অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগকারী সদর উপজেলার চর হরিপুর এলাকার প্রকেএম নাজমুল হোসেন সানাউল (৩৪),
জানান,আমি
ইদানিং মানব উন্নয়ন ক্ষুদ্রঋণ সমবায় সমিতি লিঃ এ সাধারন সম্পাদক হিসাবে কর্মরত থেকে আমাদের কার্যক্রম চালিয়ে আসছিলাম।

উল্লেখিত বিবাদীরা বিভিন্ন সময়ে কারণে অ কারনে আমাদের সমিতির নিকট চাঁদা দাবী করে আসছিলো । বিবাদীরা বর্তমানে ঈদ উপলক্ষ্যে আমাদের সমিতির নিকট থেকে১,০০,০০০/-(এক লক্ষ) টাকা চাঁদা দাবী করে। আমাদের সমিতির পক্ষ হতে চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে বিবাদীরা ক্ষিপ্ত হয়ে গত ১৬ এপ্রিল সন্ধ্যায় দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সমিতি কার্যালয়ে অতর্কিত হামলা চালিয়ে তাদের হাতে থাকা লোহার বড়, বাঁশের লাঠি, চাইনিজ কুড়াল, দা, রামদা ইত্যাদি দেশীয় অস্ত্রে সস্ত্রে নিয়ে সমিতি ঘরে অনধিকার প্রবেশ করে তাদের চাহিদার ১,০০,০০০/-(এক লক্ষ) টাকা চাঁদা দাবী করে। আমি কোন ধরনের চাঁদা দিতে পারবো না বললে বিবাদীরা আমাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে এবং আমি বিবাদীদের গালিগালাজ করতে নিষেধ করলে উপরোক্ত ০১নং বিবাদীর হুকুমে ও নেতৃত্বে অপরাপর বিবাদীরা আমাকে কিল, ঘুষি ও লাথি মেরে শরীরের বিভিন্ন স্থানে জখম করে। উপরোক্ত। ০৩, ০৪ ও ০৫নং বিবাদীরা অজ্ঞাতনামা বিবাদীদের সাথে নিয়ে সমিতি ঘরের জানালা, দরজা, চেয়ার, টেবিলসহ বিভিন্ন আসবাবপত্র ভাংচুর করে প্রায় ২৫,০০০/-(পচিশ হাজার টাকার ক্ষতি সাধন করে এবং প্রয়োজনীয় কাগজপত্রাদি ছিড়ে নষ্ট করে ফেলে। উপরোক্ত ০১ ও ০২নং বিবাদীদ্বয় সমিতি ঘরের ক্যাশিয়ার টেবিলের ড্রয়ার ভেঙ্গে ড্রয়ারে নগদ ১,৭০,০০০/-(এক লক্ষ সত্তর হাজার) টাকা জোড় পুর্বক নিয়ে যায়। তখন আমি সহ আমার সমিতি ঘরে থাকা লোকজনদের ডাক-চিৎকারে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসলে উল্লেখিত সকল বিবাদীরা সহ অজ্ঞাতনামা বিবাদীরা হুমকি প্রদর্শন করে যে, তাদের চাঁদা না দিলে এইখানে কোন সমিতি থাকবে না এবং উক্ত বিষয় নিয়া বেশি বারাবারি করলে কিংবা কাউকে জানালে বা থানায় কোন প্রকার অভিযোগ দায়ের করলে আমাকে সহ আমার সমিতির লোকজনদের সময় সুযোগ মত প্রানে মেরে লাশগুম করে ফেলবে বলে হুমকী প্রদান করেন। উল্লেখিত সকল বিবাদীরা সহ অজ্ঞাতনামা বিবাদীরা খুব খারাপ ও সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক। উক্ত ঘটনার অনেক সাক্ষী আছে। তদন্তকালে সাক্ষীগন ঘটনার সত্যতা প্রমান করিবে। আমি উল্লেখিত ঘটনা আমার
এলাকার লোকজনদের জানিয়ে থানায় অভিযোগ দায়ের করে এর সুষ্ঠু বিচার কামনা করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Share & Like
Share & Like