ময়মনসিংহে জমি বিরোধে নারী নিহতের ঘটনায় ১৮ জনের নামে মামলা। আটক -১০

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি।। ময়মনসিংহের শহরতলী শম্ভুগঞ্জ রঘুরামপুর এলাকায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষে হাসিনা খাতুন (৩৫) নামে এক নারী নিহতের ঘটনায় ১৮ জনের নামে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার (২৭ জুন) দুপুরে কোতুয়ালি মডেল থানার মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ওসি ( ইন্সপেক্টর অপারেশন) ওয়াজেদ আলী মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, নিহত হাসিনার ছোট ভাই অলিউল্লাহ বাদি হয়ে মজিবুর রহমানকে প্রধান আসামী দিয়ে ১৮ জনের নাম উল্লেখ করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছেন। এছাড়া অজ্ঞাত আসামী রয়েছে আরও ৫/৬ জন। এদের মধ্যে প্রধান আসামীসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদেরকে আজ দুপুরে ময়মনসিংহের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

উল্লেখ্য রবিবার (২৬ জুন) দুপুরে শহরতলীর শম্ভুগঞ্জ রঘুরামপুর পূর্বপাড়ায় জমি বিরোধে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় অন্তত আরও ৪ জন আহত হয়। আহতরা হলেন, নিহতের স্বামী মালেক মিয়া (৪৫), ভাতিজা কাউসার (২০) মা মনোয়ারা বেগম (৪৫), ও হোসনা বেগম (৩৫)। তারা সবাই ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এদিকে নিহতের ছোট ভাই অলিউল্লাহ অভিযোগ করে বলেন, দীর্ঘদিন ধরে নিহত হাসিনার ভাসুর আব্দুল খালেকের সঙ্গে মফিদুল ইসলাম ও তার ছেলে মজিবুর রহমানের সাথে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। পরে মফিদুল ইসলাম ও ছেলে মজিবুর রহমানের নেতৃত্বে হামলা চালায় খালেকের লোকজনের উপর। এতে মজিবুর রহমানের বল্লমের আঘাতে হাসিনা নিহত হয়। আহত হয় আরও ৪ জন। তাদের সবাইকে মমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনার সঠিক তদন্ত করে হাত্যার সাথে যারা জরিত সবাইকে আইনের আওতায় এনে কঠিন শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তিনি।

কোতুয়ালি মডেল থানার ওসি শাহ কামাল আকন্দ বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, জায়গা-জমি নিয়ে স্থানীয় আঃ খালেকের সাথে প্রতিবেশী মজিবর রহমান গংদের বিরোধ চলে আসছিল। ঘটনার দিন ওই বিরোধের জের ধরে মজিবুর রহমান ও তাঁর লোকজন বাড়ীর পাশেই একটি দোকানের জায়গা দখল করতে আসলে বাধাঁ দেয় আঃ খালেক ও তাঁর পক্ষের লোকজন। এ সময় দুই পক্ষের মধ্যে সংর্ঘষ হলে মজিবুরের হাতে টেঁটা বিদ্ধ হয়ে নিহত হয় খালেকের ছোট ভাই আঃ মালেকের স্ত্রী হাসিনা বেগম।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Share & Like
Share & Like