ময়মনসিংহে একই দিনে বিভিন্ন স্থান থেকে ৩ মরদেহ উদ্ধার।।

ডেস্ক রিপোর্ট।। ময়মনসিংহে বিভিন্ন স্থান থেকে অটোরিকসা চালক কিশোর, বিদ্যুৎস্পৃষ্ঠে নির্মাণ শ্রমিক ও ডোবা থেকে বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) দুপুরে জেলার তারাকান্দা দুইটি ও নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে একটি মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহতরা হলেন, জেলার তারাকান্দা উপজেলার বালিখাঁ ইউনিয়নের দাদরা গ্রামের শাহজাহান মিয়ার ছেলে অটোরিকসা চালক সামাদ মিয়া (১৫) ও একই উপজেলার গালাগাঁও ইউনিয়নের মাইলোরা গ্রামের মৃত সাধু রবিদাসের স্ত্রী ফুলজানি রবিদাস (৬০) এবং জেলার নান্দাইল উপজেলার দক্ষিণ রসুলপুর নদীর পাড় গ্ৰামের শাহেদ আলী ছেলে মনির হোসেন (৩০)।

এবিষয়ে তারাকান্দা থানা অফিসার ইনচার্জ আবুল খায়ের বলেন, সোমবার ৪ জুলাই প্রতিদিনের মত অটো নিয়ে বের হয় কিশোর সামাদ। রাতে বাড়ি না ফেরায় বাড়ির লোকজন এবং এলাকাবাসী সামাদকে খোঁজতে শুরু করে। খুঁজে না পেয়ে রাতেই তারাকান্দা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। পরদিন মঙ্গলবার সকালে সামাদকে খোঁজাখুজির পর তার অটোরিকশাটি কাকনী ইউনিয়নের পঙ্গুয়াই উমেদ আলী উচ্চ বিদ্যালয়ের পাশে দেখতে পারে। অটোরিকসা দেখতে পেরে বিদ্যালয়ের আশপাশে খোঁজাখোজি করলে সেফটি ট্যাঙ্কের একটি ভাঙ্গা অংশ দিয়ে ভিতরে মরদেহের পা দেখতে পেরে স্থানীয়রা থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠায়।

এদিকে, উপজেলার ময়মনসিংহ শেরপুর সড়কে তারাকান্দা উপজেলার বটতলা নামক স্থানে রাস্তার পাশের ডোবায় ফুলজানি রবিদাস নামে এক বৃদ্ধার মরদেহ দেখতে পেয়ে স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে।

তবে, অটোরিকসা চালককে কেন হত্যা করা হয়েছে জানতে তদন্ত চলছে বলেও জানান তিনি। এসব ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন আছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, নান্দাইল মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিজানুর রহমান আকন্দ বলেন, উপজেলার দক্ষিণ রসুলপুর নদীর পাড় গ্ৰামের শাহেদ আলীর ছেলে মনির হোসেন একজন নির্মাণ শ্রমিক। সে পার্শবর্তী উপজেলার ঈশ্বরগঞ্জ ছাপিলাকান্দা গ্রামে নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করতে যায়। সেখানে নির্মাণাধীন বাড়ির ছাঁদ ঢালাইয়ের কাজ করতে গেলে পানির সংকট দেখা দেয়। এসময় বৈদ্যুতিক মটর চালু করার সময় অসাবধানতা বসত বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হলে তার সহকর্মীরা টের পেয়ে তাকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করে। মরদেহ নান্দাইল উপজেলা স্বাস্থ কমপ্লেক্সে আছে। ঘটনাটি যেহেতু ঈশ্বরগঞ্জে ঘটেছে, তাই বিষয়টি তাদের জানানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Share & Like
Share & Like