মিসরে হিজাব পরা নারীরা বৈষম্যের শিকার

দেশটিতে হিজাব পরা অবস্থায় নারীরা বিভিন্ন শপিং মল এবং রেস্তোরাঁয় খাবার খেতে গিয়ে বাধার সম্মুখীন হচ্ছেন।

বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, এসব ঘটনা মিসরের সংবিধানের পরিপন্থী। যেখানে ধর্ম, লিঙ্গ, জাতি বা সামাজিক শ্রেণির ওপর ভিত্তি করে বৈষম্য নিষিদ্ধ করা হয়েছে। ২০১৫ সাল থেকে হিজাব ব্যবহার করা মিসরীয় নারীদের একটি গ্রুপ এই ধরনের আচরণের বিষয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অভিযোগ করে আসছে।

বিবিসি হিজাব পরা নারীদের অভিযোগের ভিত্তিতে কায়রোর ১৫টি ভেন্যুতে অনুসন্ধান চালায়। দেখা গেছে বেশির ভাগ ভেন্যুতে সেখানে আসা নারীদের কাছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের প্রোফাইলের বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়।

মায়ার ওমর নামের ২৫ বছর বয়সী কায়রোর এক গবেষক বলেন, তিনি কিছু উচ্চমানের রেস্তোরাঁয় যেতে বারবার বাধার সম্মুখীন হয়েছেন। তিনি বলেন, ‘কোনো জায়গায় গেলে আপনি নিশ্চয়ই চাইবেন না কেউ আপনাকে কিছু করতে বাধ্য করছে বা কোনো অনুষ্ঠানস্থলে আপনি আপনার বন্ধুদের সমস্যার কারণ হতে চাইবেন না।’

রেস্তোরাঁটির পক্ষ থেকে বিবিসিকে বলা হয়, এটি ‘ঠিক নয়’ এবং যে নারীরা হিজাব পরেন, তাঁদের ঢুকতে বাধা দেওয়া প্রতিষ্ঠানের নিয়ম নয়। তারা জানায়, ‘আমরা এমন বৈষম্যের নিন্দা করি। ভবিষ্যতে কোনো বিভ্রান্তি এড়াতে আমরা কর্মীদের কাছে আমাদের নীতিমালাগুলো পুনর্ব্যক্ত করেছি।’

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Share & Like
Share & Like